ভোট কারচুপি করা যাবেনা – সিইসি

Image may contain: 7 people, people sitting and table

আল মুজাদ্দেদী২৪বিডী.কম:  চট্টগ্রাম, ৮ জানুয়ারি, বুধবার:বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা বলেছেন, আগামী ১৩ জানুয়ারি অনুষ্টিতব্য জাতীয় সংসদের চট্টগ্রাম-৮ আসনের নির্বাচন। এ আসনের প্রত্যেকটি কেন্দ্রে ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট গ্রহন অনুষ্টিত হবে। ইভিএমে ভোট হলে ভোটারদের মধ্যে আর কোন ভীতি থাকবে না, ভোট কারচুপি করা যাবে না, ব্যালট চুরি করার কোনো সুযোগ নেই। তাছাড়া একজনের ভোট আরেকজন দিতে পারবে না। একজনের ভোট দেওয়া শেষ হলেই অন্য জন ভোট দিতে পারবেন। শুধু তাই নয়, ইভিএম-ই একমাত্র উপায় যেখানে যার ভোট তিনি দিতে পারবেন। জাল ভোট দেওয়ার সুযোগ নেই।

সিইসি আজ ৮ জানুয়ারি বুধবার দুপুরে চট্টগ্রাম সার্কিট হাউসে আয়োজিত আইন-শৃংখলা বিষয়ক মতবিনিময় সভা শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রিজাইডিং অফিসারের হাতে ২৫ শতাংশ ভোট আছে এমন খবর সম্পূর্ণ মিথ্যা জানিয়ে তিনি বলেন, বিষয়টি অনেকটা চাঁদে মানুষের চেহারা দেখা যাওয়ার মতো। নির্বাচনের বিধি অনুসারে কোথাও এক শতাংশ ভোটও প্রিজাইডিং অফিসারের হাতে আছে এমন কিছু লেখা নেই। এসব খরব ভিত্তি হীন বলে তিনি মন্তব্য করেন।

তিনি আরো বলেন, অভিযোগ যে কেউ করতে পারে, কিন্তু অভিযোগের ভিত্তি আছে কিনা তা আগে দেখতে হবে। ইভিএমে ভোট হলে কখনও একজনের ভোট অন্যজন দেওয়ার সুযোগ নেই। বিগত নির্বাচনগুলোতে ভোটার উপস্থিতি কম ছিল এমন বক্তব্যে তিনি বলেন, নির্বাচনে ভোটার কম হওয়ার অনেকগুলো কারণ থাকতে পারে। একটা কারণ হলো- নির্বাচন প্রতিদ্বন্ধিতা না হওয়া বা বিশেষ করে বড় দলগুলো নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করলে অথবা প্রতিদ্বন্ধিতা না হলে ভোটার সংখ্যা কম হয়।

নির্বাচনী এলাকায় ধানের শীষের প্রতীক ছিড়ে ফেলার অভিযোগ করেন বিএনপির প্রার্থী আবু সুফিয়ান। তিনি বলেন, আমার কর্মীদের নির্বাচনী প্রচার-প্রচারনা বন্ধ করার জন্য হুমকি -ধমকি দেওয়া হচ্ছে।Image may contain: 18 people, people smiling, people standing

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রার্থী মো. মোসলেম উদ্দিন বলেছেন, আমি বীর মুক্তিযোদ্ধা। মুক্তিযুদ্ধের আদর্শ নিয়ে নির্বাচন করছি। আমার নির্বাচনী এলাকায় কোন ধরনের সংঘাত সৃস্টি হতে দেইনি। এ এলাকার সাধারণ জনগন তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারবে।

এসময় চট্টগ্রাম সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন, নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. মোখলেসুর রহমান, যুগ্ম সচিব ফরহাদ আহম্মেদ, রিটানিং অফিসার মো. হাসানুজ্জামানসহ চট্টগ্রাম জেলা নির্বাচন কার্যালয়ের কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

শিক্ষাঙ্গন

খেলাধুলা

লাইফস্টাইল

ঘোষনাঃ