ফরিদগঞ্জে ঘরের লড়া থেকে এক সন্তানের জননী’র ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

ফরিদগঞ্জের ৫নং পূর্ব গুপ্টি ইউনিয়ন ঘনিয়া গ্রামের পোতিশ বাড়ির এক সন্তানের জননী’র ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। রোববার বিকালে ফরিদগঞ্জ থানার পুলিশ স্বামীর বসতঘর থেকে নারীর লাশ উদ্ধার করে। ঘরে শাশুড়ী আলিমুন নেছার হাতে পুত্র বধু সালমা বেগম (২২) কে মেরে ঝুলিয়ে রাখার অভিযোগ উঠে।
বাড়ির লোকজন গৃহবধু’র মাটিতে হাতে ও বিছানায় রক্ত দেখে এটি হত্যাকান্ড বলে দাবি করছেন।Image may contain: one or more people and people standing

শাশুড়ী আলিমুন নেছার দাবি তার পুত্রবধু আত্মহত্যাই করেছেন।
স্বামী প্রবাস থাকায় নিহত গৃহবধু সালমা তার ২ বছরের ছেলে ও শাশুড়ীকে নিয়ে ঘরে থাকেন। গৃহবধু’র সভাব চরিত্র নিয়ে কোন খারাপ অভিযোগ চোখে পড়েনি বলে বাড়ীর লোকজন জানান।
এদিকে ফরিদগঞ্জ থানার পুলিশ রবিবার ময়না তদন্ত শেষে লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেছেন বলে জানা যায়। পুলিশ জানায় লাশের ময়না তদন্ত রির্পোট হাতে ফেলে বুঝা যাবে এটি হত্যা না আত্মহত্যা। শাশুড়ীর বিরুদ্ধে প্রাথমিক অভিযোগ উঠলেও এখন পর্যন্ত আটক করা হয়নি।


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

শিক্ষাঙ্গন

খেলাধুলা

লাইফস্টাইল

ঘোষনাঃ