চাঁদপুর রঘুনাথপুরে বখাটে শহীদ বেপারীর হামলায় ৪ জন আহত

চাঁদপুর সদর উপজেলার মধ্য ঘুনাথপুর গ্রামে মাদকাসক্ত, বখাটে শহীদ বেপারীর হামলায় একই পরিবারের ৪ জন গুরুতর আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। ৮ নভেম্বর শুক্রবার দুপুরে ১০ নং লক্ষ্মীপুর ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ডস্থ রঘুনাথপুরস্থ বেপারী বাজার দিদার উল্ল্যাহ বেপারী বাড়িতে এ হামলার ঘটনা ঘটে। পুলিশের উপস্থিতি পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায় হামলাকারী ও তার পরিবার।
আতরা হলেন, ওই বাড়ির মোঃ বাচ্ছু বেপারী (৭০), তার স্ত্রী খুশিদা বেগম (৬০), মেয়ে সালমা বেগম (২৭) ও ছেলে মেহেদী হাসান শিহাব (১৫)।
আহতরা এবং ওই বাড়ির একাধিক ব্যক্তি জানান, শুক্রবার দুপুরে ওই বাড়িতে বর যাত্রীর একটি মাইক্রোবাস পার্কিং করে রাখা হয়। আর সেই গাড়িটি যেনো কেউ না ধরে বর যাত্রীরা আহত শিহাবকে এ কথা বলে যান। তার কিছুক্ষন পর হামলাকারী শহীদ বেপারীর ছোট ছেলে গাড়িটি ধরলে শিশু শিহাব সেটি না ধরতে ভারন করেন। একথা শুনেই শহীদ বেপারী, শিহাব গালমন্দ করে তাকে এলোপাতারি মারধর শুরু করেন। ছেলে মারতে দেখে বাচ্চু বেপারী এগিয়ে গিয়ে তাকে জিজ্ঞাসা
করতেই তার ওপর ও অর্তকিত হামলা চালায় সে। শহীদ বেপারী ও তার স্ত্রী মর্জিনা বেগম একই ভাবে বাচ্চু বেপারীর স্ত্রী খুশিদা বেগম ও মেয়ে সালমাকে চুলের মুঠি ধরে মাটিতে টেনে হেছরে কিল, লাথি, ঘুষি সহ দেশিয় অস্ত্র দিয়ে তাদেরকে মেরে গুরুতর আহত করেন।
ঘটনার খবর পেয়ে চাঁদপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ নাসিম উদ্দিনের নির্দ্দেশে এ এস আই আনোয়ার হোসেন ঘটনাস্থলে গেলে শহীদ বেপারী ও তার পরিবার বাড়ি থেকে গা ঢাকা দিয়ে পালিয়ে যায়।
স্থানীয়রা জানান, শহীদ বেপারী পূর্ব থেকেই একজন খারাপ প্রকৃতির লোক। সে ৪ টি বিয়ে করেছে। কয়েক বছর পূর্বে তার অত্যাচারে তার ৩ য় স্ত্রী নিজে এবং সন্তানকে বিষপানে করিয়ে আত্মহত্যা করেন। যা স্থানীয় পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হয়। এছাড়াও শহীদ বেপারী প্রায়ই বাড়ি এবং এলাকার লোকজনের সাথে তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে মারা মারিতে জড়িয়ে পড়েন। তার অত্যাচারে বাড়ি লোকজন অনেক অতিষ্ঠ। তার অন্যায়, অত্যাচার থেকে মুক্তি পেতে পুলিশ প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করছেন স্থানীয়রা।

 

 


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

শিক্ষাঙ্গন

খেলাধুলা

লাইফস্টাইল

ঘোষনাঃ