আজ এক্সপ্রেস ইন্স্যুরেন্সের আইপিও আবেদন শুরু

জুন ১৪, ২০২০:প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে পুঁজিবাজার থেকে মূলধন উত্তোলনের অনুমোদন পাওয়া এক্সপ্রেস ইন্স্যুরেন্স লিমিটেডের আইপিও সাবস্ক্রিপশন আজ থেকে শুরু হচ্ছে। আগ্রহী বিনিয়োগকারীরা ১৮ জুনের মধ্যে কোম্পানিটির আইপিওর চাঁদা জমা দিতে পারবেন। এর আগে এ বছরের ১৩ এপ্রিল থেকে ২০ এপ্রিল পর্যন্ত কোম্পানিটির আইপিওর চাঁদা গ্রহণের সময়সীমা নির্ধারিত ছিল। কিন্তু কভিড-১৯-এর কারণে ২৫ মার্চ থেকে সরকারের সাধারণ ছুটির ঘোষণার কারণে কোম্পানিটির আইপিও চাঁদা গ্রহণের সময়সীমা পিছিয়ে যায়।

এ বছরের ১৮ ফেব্রুয়ারি পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড একচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) ৭১৯তম কমিশন সভায় কোম্পানিটির আইপিও অনুমোদন করা হয়। কোম্পানিটি আইপিওর মাধ্যমে ১০ টাকা অভিহিত মূল্যে ২ কোটি ৬০ লাখ ৭৯ হাজার সাধারণ শেয়ার ইস্যু করবে। এর মাধ্যমে কোম্পানিটি পুঁজিবাজার থেকে ২৬ কোটি ৭ লাখ ৯০ হাজার টাকা উত্তোলন করবে। এর মধ্যে ১৯ কোটি ৩৬ লাখ ৩২ হাজার টাকা রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকে এফডিআর, ২ কোটি টাকা সরকারের ট্রেজারি বন্ডে, ১ কোটি টাকা মিউচুয়াল ফান্ডে এবং ২ কোটি ২১ লাখ ৫৮ হাজার টাকা সেকেন্ডারি মার্কেটে এ ক্যাটাগরির কোম্পানির শেয়ারে বিনিয়োগের পাশাপাশি দেড় কোটি টাকা আইপিওর ব্যয় নির্বাহে খরচ করবে কোম্পানিটি।

এদিকে এক্সপ্রেস ইন্স্যুরেন্সের আইপিওর ক্ষেত্রে বিএসইসি পাবলিক ইস্যু বিধিমালা, ২০১৫ বিধি ৩(৩)(সি)-এর বিধানগুলো পরিপালনের বাধ্যবাধকতা থেকে অব্যাহতি দিয়েছে। একই সঙ্গে আইপিওর মাধ্যমে উত্তোলিত মূলধনের ন্যূনতম ২০ শতাংশ অর্থ ‘বীমা (নন-লাইফ বীমকারীর সম্পদ বিনিয়োগ ও সংরক্ষণ) প্রবিধানমালা, ২০১৯’-এর বিধানগুলো পরিপালনসাপেক্ষে পুঁজিবাজারে বিনিয়োগের শর্ত আরোপ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কমিশন।

এছাড়া কমিশনের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, এক্সপ্রেস ইন্স্যুরেন্সের সাধারণ শেয়ার কেনার জন্য ইলেকট্রনিক সাবস্ক্রিপশনে অংশগ্রহণে ইচ্ছুক প্রত্যেক যোগ্য বিনিয়োগকারীকে সাবস্ক্রিপশন শুরুর দিন থেকে পূর্ববর্তী পঞ্চম কার্যদিবস শেষে তালিকাভুক্ত সিকিউরিটিজে বাজারমূল্যে ন্যূনতম ১ কোটি টাকা বিনিয়োগ থাকতে হবে।                                                         

২০১৮ সালের ৩১ ডিসেম্বর সমাপ্ত হিসাব বছরের নিরীক্ষিত আর্থিক বিবরণী অনুযায়ী, পুনর্মূল্যায়ন সঞ্চিতিসহ কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি নিট সম্পদমূল্য (এনএভিপিএস) ১৮ টাকা ৭২ পয়সা, পুনর্মূল্যায়ন সঞ্চিতি ছাড়া যা ১৬ টাকা ৬৫ পয়সা। গত পাঁচ হিসাব বছরের আর্থিক বিবরণী অনুযায়ী কোম্পানিটির কর-পরবর্তী নিট মুনাফার ভারিত গড় হারে শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) ১ টাকা ৪২ পয়সা।

কোম্পানিটির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছে ট্রিপল এ ফিন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড, আইআইডিএফসি ক্যাপিটাল লিমিটেড ও বিএলআই ক্যাপিটাল লিমিটেড।বণিক বার্তা

 


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

শিক্ষাঙ্গন

খেলাধুলা

লাইফস্টাইল

ঘোষনাঃ